টিকুরিয়া আদর্শ নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অনিয়ম ভাবে শিক্ষক নিয়োগের অভিযোগ


নজরুল ইসলাম (সংবাদদাতা) :: নেত্রকোনার  পূর্বধলা উপজেলায় টিকুরিয়া আদর্শ নিন্ম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অনিয়ম ভাবে শিক্ষক নিয়োগের অভিযোগ উঠেছে। ১৯৯৯ সালে প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়টি  ২০১০ সালের মে মাসে এমপিও ভূক্ত হয়। ৬ জন শিক্ষক  ২জন ৪র্থ শ্রেনীর কর্মচারী নিয়ে  বিদ্যালয়ের  কার্যক্রম যথাক্রমে সরকারী  নিয়ম অনুযায়ী  চালু আছে অদ্যবধি  পর্যন্ত।  

সূত্রে জানা যায়, বিদ্যালয়ের  প্রধান শিক্ষক মোঃ মতিউর রহমান  সরকারী নিয়ম নীতিকে না মেনে কৌশলে অর্থের বিনিময়ে উপজেলার নারায়নডহর (কৃষ্টপুর) গ্রামের মোঃ নুরুল আমিন ফকির কে দিয়ে অনলাইনে সমাজ বিজ্ঞানের আবেদন করানো হয় এবং দায়িত্বপ্রাপ্ত সমাজ বিজ্ঞানের শিক্ষক মো: সমাজ খানকে কম্পিউটার শিক্ষক হিসাবে অনলাইনে দেখানো হয়। অথচ মো: সমাজ খান ১০/০২/২০০৩ ইং তারিখে উক্ত বিদ্যালয়ে সমাজ বিজ্ঞানের শিক্ষক পদে নিয়োগ প্রাপ্ত হয়ে ০১/০৫/২০১০ ইং তারিখ হতে এমপিও ভূক্ত হয়ে সরকারী বেতন ভাতাদি উত্তোলন করিতেছে।

আরও জানা যায়, প্রধান শিক্ষকের সহি স্বাক্ষর সংবলিত পূর্বের ষ্ট্যাপিং প্যাটর্ন পরিবর্তন করে নতুন ষ্ট্যাপিং প্যার্টনে নুরুল আমিন ফকির ও মোজাম্মেল হক কে অন্তর্ভূক্তি করে নুরুল আমিন ফকিরের জন্য অনলাইনে নতুন বিলের আবেদন করে।  

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শফিকুল  বারী ও স্কুলের প্রধান শিক্ষক  মতিউর রহমান এর সাথে বিষয়টি জানতে চাইলে  ফোন আলাপে জানান, কে বা কাহারা এ ঘটনার সাথে জড়িত তাহা আমাদের জানা নাই কোন একটি চক্র হয়তোবা এ ঘটনা গঠিয়েছে।

এ দিকে সমাজ বিজ্ঞানের শিক্ষক মো: সমাজ খান বলেন, এ হেন অনৈতিক কাজের জন্য আমার স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার অবশ্যই দায়ী। 
উপরোক্ত ঘটনাটি উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করছি।

No comments

Powered by Blogger.