রিফাত হত্যায় পরিকল্পনাকারী নয়ন বন্ড, কিলিং মিশনে মূল রিফাত ফরাজী


বরগুনা প্রকাশ্যে রিফাত কে কুপিয়ে হত্যা অভিযুক্তরা সকাল থেকে কলেজের সামনে নানা পরিকল্পনা করতে থাকে একসময় কলেজ থেকে তারা জোর করে রিফাত কে বের করে নিয়ে যায় পুরো হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ঐদিন সরাসরি 15 থেকে 20 জন জড়িত ছিল। আর কিলিং মিশনে এর মূল ভূমিকা পালন করে 2 নম্বর আসামি রিফাত ফরাজী মাত্র দুই মিনিটের মধ্যেই তাদের মিশন শেষ করে চলে যায় বন্ড বাহিনীর সিসিটিভি ফুটেজ পুরো ঘটনার এমনই তথ্য মিলেছে।
বরগুনায় রিফাত শরিফ কুপিয়ে হত্যার ঘটনার পরিকল্পনাকারী নয়ন বোর্ড হলেও কিলিং মিশন এর মূল ভূমিকা পালন করে 2 নম্বর আসামি রিফাত ফরাজী সিসিটিভির ফুটেজ হাতে আসা ঘটনার দিনের একটি সিসিটিভি ফুটেজ এই চিত্র দেখা। গেছে সিসিটিভির ফুটেজে দেখা যায় হত্যাকাণ্ডের শিকার হওয়া রিফাত শরিফ ঘটনার দিন সকাল দশটায় তার স্ত্রীকে মিন্নীকে নিতে একটি সাদা মোটর সাইকেল নিয়ে কলেজে আসে 10:03 মিনিটে বন্ড বাহিনীর প্রধান ঘাতক কালো সার্ট পরা রিফাত ফরাজী 6 থেকে 7 জনকে নিয়ে কলেজ গেটের বাইরে গিয়ে অপেক্ষা করতে থাকে দুই থেকে তিন মিনিট পরে আরো দুই থেকে তিন জনকে কলেজে পাঠায় সে ১০:০৯ মিনিটে ওই তিনজন সহ আরো কয়েকজনকে নিয়ে কলেজ থেকে বেরিয়ে রাস্তার উল্টোপাশে অবস্থান নেয়।
এক মিনিট পরে ঘাতকরা রিফাত ফরাজী গেটের কাছে এসে আরো দুটি ছেলেকে কিছু নির্দেশনা দিয়ে উল্টোদিকে পাঠায় 10 টা 12 মিনিটে কলেজ থেকে বেরিয়ে রিফাত গাড়িতে ওঠার চেষ্টা করে ঠিক 10:13 মিনিটে ঘাতক রিফাত ফরাজী নিহত রিফাত শরিফ কে কলেজের গেটে এসে বন্ড বাহিনীর সহায়তায় জোর করে নয়ন বন্ডের কাছে নিয়ে যায়। সেখানে সবাই তাকে কিল ঘুষি মারতে থাকলো রিফাত ফরাজী ও একজন দৌড়ে গিয়ে তিনটি রামদা নিয়ে আসে রিফাতের হাতে দুটি দায়ের একটি দা নয়ন বন্ডকে দেয় ও আরেকটি দিয়ে নিজেই কুপাতে শুরু করে 10 টা 15 মিনিটে নয়ন রিফাত সহ বন্ড বাহিনী কলেজ গেটের সামনে থেকে চলে যায় আর ঘটনার 8 মিনিট পরে দুইজন পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তদন্ত শুরু করে।

No comments

Powered by Blogger.