সরিষাবাড়ীতে রামদার ভয় দেখিয়ে যুবলীগ নেতা জমি দখলের চেষ্টা : মারধরে আহত ১০


রাশেদুল ইসলাম (জেলা প্রতিনিধি) জামালপুর : জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ী উপজেলার ৩নং ডোয়াইল ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক সরিষাবাড়ী উপজেলা যুবলীগের নেতা কামাল হোসেন রামদার ভয় দেখিয়ে একটি পরিবারের জমিদখলের চেষ্টা করেছে । এ ঘটনায় পরিবারের লোকজন কে মারধোর করায় আহত হয়েছে ১০জন । গতকাল শনিবার বিকালে উপজেলার ৩নং ডোয়াইল ইউনিয়নের মাজালিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে ।

এ ঘটনার পর থেকে ভুক্তভোগির পরিবারের লোক জন বাড়ি ঘর ছেড়ে ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে । স্থানীয় ও ভুক্তভোগি পরিবার সুত্রে জানা, গেছে সরিষাবাড়ী উপজেলার মাজালিয়া বিলপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের কাছ থেকে ১৯৫৩ সালে হাসড়া মাজালিয়া মৌজার ৬১টি শতাংশ জমি সাব কাওলা হিসেবে কিনে নেয় মৃত মনিরুদ্দিনের ছেলে মৃত মোজাফফর ও মৃত জৈন শেখ । এর পর থেকে তারা জমিটির মালিকানা সুত্রে ভোগ দখল করিয়া আসিতেছে  এবং জমিতে বসত বাড়ী, পুকুর, কবরস্থান স্থাপন করেন ।

এছাড়া জমিতে ফলজ বনজ ও বিভিন্ন জাতের গাছ রোপন করেন । সম্পতি জমির পূর্ব মালিক মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে, আয়নাল হক, নাতি মজনু মিয়া জমিটি ফিরে পেতে মোজাফফর ও জৈন শেখের পরিবারকে বিভিন্ন সময় হুমকি ধামকি দিতে থাকে । এই জমি নিয়ে বিভিন্ন সময় গ্রাম্য মাতব্বরদের নিয়ে দফায় দফায় অহেতুক শালিশ ও করেন মাতব্বরগণ। কিন্তু কোন লাভ করতে পারেনি মৃত আব্দুর রহমানের উত্তর সুরি আয়নাল হক ও মজনু মিয়া । বিভিন্ন সময় মাতব্বরদের বিচারে নিজেদের জমির ক্রয় সুত্রে প্রকৃত মালিক বলে দাবি করেন মোজাফফর ও জৈন শেখের ছেলে সাইফুল ইসলাম, আব্দুল কাদের, তোষর আলী, শফিকুল ইসলাম, চাঁন মিয়া, আলতাব হোসেন, তোতা মিয়া  ও লাল চান মিয়া ।

এলাকায় জমি নিয়ে বিভিন্ন সময় শালিশে আয়নাল হক ও নাতি মজনু মিয়ার পক্ষে উপস্থিত ছিলেন ডোয়াইল ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক কামাল হোসেন ও তার ভাই মিনহাজ আহাম্মেদ বক্স উপস্থিত ছিলেন । সালিশে সাইফুল ইসলাম সহ অন্যান্য ভাইয়েরা জমি ফেরত দিতে অস্বীকৃতি জানায়। পরে কামাল ও মিনহাজের নেতৃত্বে কামালের সহযোগী মজিবর রহমান , হাবিবুর রহমান, আব্দুল মান্নান, ফারুক হোসেন, জয়নাল আবেদীন । ফরিদ হোসেন, আলী আকবর সহ কয়েকজন সন্ত্রাসী রামদা ও লাঠি শোটা নিয়ে তোষর আলীর বাড়িতে হামলা ও ভাংচুর ও তোষর আলীর ঘড়ে থাকা ৫ লক্ষ টাকা লুট করে নিয়ে যায় য়ায় ।

এছাড়া তাদের জমিতে রোপন করা ফলজ ও বনজ অর্ধ শতাধিক গাছ কেটে ফেলে । স্থানীয় করাতী সুজা মিয়া , আব্দুল মালেক, গাছ কাটা কাজ করে । একই সঙ্গে জমিতে থাকা একটি ছাপড়া ঘর ভেঙ্গে জোর করে জমি দখলের চেষ্টা করে, যুবলীগ নেতা কামাল ও তার ভাই মিনহাজ । এ সময় তাদের বাধা দিতে গেলে আলতাব হোসেন, তোতা মিয়া ও লাল চান মিয়াকে যুবলীগ নেতা কামাল মিয়া রামদা নিয়ে ভয় দেখান ও মারধোর করেন।

এ ঘটনায় আলতাব, রুবেল, কাদের, তোতা, চানমিয়া, ঝর্ণা, রওশনা । তৌকির ও রিপন গুরুত্বর আহত হয়ে সরিষাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে ।বাকিদের স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে । এ ঘটনার পড় থেকে ভয়ে পালিয়ে গেছে আলতাব হোসেন ও তোতা মিয়ার পরিবারের লোকজন । এ ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে ডোয়াইল ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক কামাল হোসেন, তাকে সহ সহযোগী মজনু মজিবর আলী আকবরকে মারধোর করা হয়েছে । তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন প্রকৃত ঘটনা উৎঘাটন করে পত্রিকায় লিখতে অনুরোধ করেন । এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানা অফিসার ইন চার্জ মাজেদুর রহমান বলেন মার পিটের বিষয়টি এখনও আমার জানা নেই, কেউ যদি অভিযোগ করে তাহলে ঘটনা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।

No comments

Powered by Blogger.