সরিষাবাড়ীতে ছাত্রলীগ নেতার নেতৃত্বে সরকারি কর্মচারীকে মার-পিটের অভিযোগ


রাশেদুল ইসলাম (জামালপুর থেকে) : জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ী পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সুজনের নেতৃত্বে সরকারি কর্মচারীকে কোয়াটার থেকে ডেকে নিয়ে মার পিট করার  অভিযোগ উঠেছে।


বুধবার সন্ধে সারে সাতটার দিকে পৌর সভার মোড়ে এ ঘটনা ঘটেছে। মারপিটের শিকার সরিষাবাড়ী উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের অফিস সহায়ক আলতাফুর রহমান জানান সরিষাবাড়ী পেীর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সুজন বেশ কিছুদিন ধরে সাতটি ভিজিডি কার্ড দাবী করে আসছিল। তার দাবী আলতাফুর পুরণ না করায় অফিস চলাকালিন সময় তার উপর অকারনে হুমকি দামকি প্রদর্শন করে আসছিল।


 তারই ধারাবাহিকতায় আলতাফুর রহমানকে বুধবার সন্ধে সারে সাতটার দিকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে যায় সুজন। সুজনের ফোনে আলতাফুর রহমান তার শিশু কণ্যাকে কোলে নিয়ে পৌর সভার মোড়ে উপস্থিত হলে সুজনের নেতৃত্বে আট নয়জন ছাত্রলীগ সমর্থকরা আলতাফুর কে মারপিট ও লুঙ্গী শাট খুলে নেওয়ার চেষ্টা করে । আলতাফুর জানান আমার কোলে থাকা তিন বছরের মেয়ে আদিবা জাহান অবনি রেহাই পায়নি সুজন বাহিনীর হাত থেকে ।


জানা যায় মেহেদী হাসান সুজন সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ হারুন অর রশিদের লালিত ক্যাডার হ্ওয়ায় দীর্ঘ দিন যাবৎ সরিষাবাড়ীর বিভিন্ন স্থান থেকে ব্যবসায়ীদের নিকট থেকে চাদাবাজি অব্যহৃত রেখেছে বলে জানান অনেকে ।


 এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শায়লা নাজনীন বলেন কোয়াটর থেকে ডেকে নিয়ে মারপিটকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা ন্ওেয়া হবে। এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানা অফিসার ইনচার্জ মাজেদুর রহমান জানান মারপিটের বিষয়ে কোন অভিযোগ পাইনি অভিযোগ পেলে তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।

No comments

Powered by Blogger.