কাদিয়ানিদের অমুসলিম ঘোষনা করা হউক : আল্লামা জোবায়ের আহাম্মদ আনসারী


নিজস্ব প্রতিবেদক : ইসলাম আল্লাহর মনোনীত একমাত্র শান্তির ধর্ম। ইসলাম ধর্মের প্রবর্তক হযরত মোহাম্মদ (স)। মহান আল্লাহ তাআলার পর যার সম্মান ও মর্যাদা । আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামীন উনার নামের সাথে যুক্ত করে শ্রেষ্ঠ কালিমা বা সত্যের বাণী “লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মোহাম্মাদুর রসূলূল্লাহ” সমগ্র মুসলমাকে উপহার দিয়েছেন। এই কালিমা পাঠ করার সাথে সাথে নবীজি (স) এর উপর দুরূদ পড়া বাধ্যতামূলক হয়ে যায়।


মহানবী হযরত (স)’র গুনের কোন কমতি আছে এর প্রমাণ ওই কাফের বা নাফরমানগণও বের করতে পারে নাই। নবী (স) হলো শেষ নবী কি/না এটা সন্ধেহ করলেও ইমান থাকবে না। নবী  (স) শেষ নবী এই বিষয়টি পরীক্ষা করতে গিয়ে অনেক ইহুদী কালিমা পড়ে মুসলমান হয়ে গেছে।

কিন্তু একধরনের নামদারী মুসলমান বিশ্বনবী (স) কে শেষ নবী মানতে রাজি না। তাদের মূখের ভাষ্য শেষ নবী এখন আসে নাই, আসার সময় হয়ে গেছে, এধরনের বানোয়াট মিথ্যা বলে ইসলামের মাঝে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছে। তারা মসজিদে ঢুকে, মক্কার কা,বা গৃহে ঢুকে পবিত্র জয়গা গুলোকে অপবিত্র করছে। এরা কারা, এরা কাদিয়ানি ।


বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) নেত্রকোণার পূর্বধলা উপজেলা সদরের কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে ইত্তেহাদুল মাদারিসিন আরাবিয়া’র উদ্যোগে বার্ষিক ইছলাহী মাহফিলে আল্লামা হযরত মাওলানা জোবায়ের আহাম্মদ আনসারী সাহেব উনার বয়ানে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নিকট আবেদন করেন, বাংলাদেশে কাদিয়ানিদের অমুসলিম ঘোষনা করা হউক। সমস্ত ওলামাকেরাম এতে একমত কারণ ওরা সম্পূর্ণ ইসলাম শরী’আ বিরোধী কর্মকান্ড করে থাকে।

 তিনি আরো বলেন, এদেরকে অমুসলিম ঘোষনা করা হলে হজ্বে যাওয়ার সুযোগ পারে না এবং বাংলাদেশের মসজিদ এমনকি মক্কা ও মদিনার পবিত্র ভূমিতে এরা পা ফেলতে পারবে না।সর্বশেষে তিনি রাজধানীতে বনানীর অগ্নিকান্ডে নিহত/ আহতদেরসহ সমগ্র বিশ্ববাসির জন্য দোয়া প্রার্থনা করে ওনার বয়ান শেষ করার মাধ্যমে মাহফিল সমাপ্ত হয়।

No comments

Powered by Blogger.